1. dssangbad1@gmail.com : dss :
  2. admin@news.eswadhinsangbad.com : admin :
কালীগঞ্জের তানজিম সুস্থ হতে চায় - দৈনিক স্বাধীন সংবাদ
সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৩:৩৪ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনামঃ
ডেমরায় আবাসিক হোটেল থেকে অসামাজিক কাজের অভিযোগে গ্রেপ্তার ১১ গণতন্ত্র ও মানবাধিকার ইস্যু সুশীল সমাজের সঙ্গে সরকারকে যুক্ত থাকার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম নিয়ন্ত্রণ সরকারের উদ্দেশ্য নয় : আইনমন্ত্রী গলায় দড়ি দিলেন মা ছেলে-মেয়েকে বিষ খাইয়ে ঢাকা জেলার ধামরাই এলাকা হতে ৯৮০ গ্রাম হেরোইনসহ ০১ জন মাদক কারবারি’কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৪ আশুলিয়ায় চোর সন্দেহে এক যুবককে পিটিয়ে হত্যা,গ্রেফতার-২ মুরাদনগর উপজেলার ২নং আকুবপুর ইউনিয়নের উদ্যোগে আওয়ামী লীগের ২ নেতার স্মরণ সভা  বাকেরগঞ্জে মহান শহীদদিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ভাষা শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন লক্ষীপুর জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন সম্পন্ন সভাপতি জসিম সম্পাদক বিপ্লব অদ্বৈত মল্লবর্মণ সাহিত্য পুরস্কার প্রদানের মাধ্যমে শেষ হলো তিন দিনব্যাপী ২য় অদ্বৈত গ্রন্থমেলা ২০২৪

কালীগঞ্জের তানজিম সুস্থ হতে চায়

আবুল হাসনাত
  • প্রকাশিত : শনিবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২৩
  • ১৮ জন দেখেছে

স্থুলতা একটি মারাত্মক রোগ। সুন্দর ছিমছাম শারীরিক গঠন কার ভালো না লাগে। শারীরিক স্বাভাবিক কাঠামোতে যে বাহ্যিক সৌন্দর্য্য ফুটে ওঠে শুধৃ তা নয় এতে করে অনেক গুরুতর রোগ হতেও নিজেকে রক্ষা করা যায়। সামাজিকভাবেও এমন একটি বিশ্বাস আছে যে, প্রতিবন্ধী একটি অভিশাপ ।
গাজীপুর জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার পৌরসভার মূলগাও গ্রামের বালুঘাট এলাকার মো,তানজিম সরকার’র (১৭) কথা বলছি। সে অত্র এলাকার আব্দুল বাতেনের পূত্র। বর্তমানে তার উচ্চতা ৫ ফুট ৭ ইঞ্চি,ওজন ১৯০ কেজি।
তানজিমের মা আমেনা বেগম জানান, ছোট সময়ে তার তেমন কোন সমস্যা না থাকলেও বয়স বাড়ার সাথে সাথে এ সমস্যা দেখা দেয়। তার মা আরোও জানান, তার বয়স যখন আট তখন থেকেই হঠাৎ করে ওজন বাড়তে থাকে। ছোট বেলা তাকে অনেক ডাক্তার, কবিরাজ দেখাইছি কিন্তু লাভ হয়নি। তার মা ছেলের এ অবস্থায় আবেগে আপ্লুত হয়ে বলেন, স্থানীয় কাউন্সিলরসহ বিত্তবান ও ন্থানীয় অনেক নেতৃবৃন্দ্রের কাছে ছেলের চিকিৎসার জন্য সহযোগিতা চেয়েছি। কিন্তু কেউ এগিয়ে আসেনি। সবাই মিথ্যা আশ^াস দিয়েছে।
তানজিমের বাবা আব্দুল বাতেন প্রতিবেদককে বলেন, আমার ছেলেটা খুবই সহজ সরল। সে যখন ৫ম শ্রেনীতে পড়ে তখন থেকেই এই সমস্যা দেখা দেয়। মাঝে মধ্যে বাড়িতে এসে সে ব্যঙ্গ-বিদ্রুপের কথা আমাদের জানাতেন। বয়সন্ধির সময় থেকে অর্থাৎ ১১-১২ বছর বয়স থেকে ছেলেটিকে স্কুলে বাড়তি ওজনের জন্য প্রায়ই ব্যঙ্গ ও উপহাসের শিকার হতে হত। ডাক্তার বলেছে হরমোন সমস্যার কারনে তার ওজন বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রথম দিকে ডাক্তার দেখালেও এখন আর দেখাই না। অভাবের সংসার, বউ বাচ্ছা নিয়ে সংসার চালাতে এমনিতেই হিমসিম খাচ্ছি। ডাক্তার দেখানোর টাকা পাব কোথায়। তিনি আরোও বলেন, সমাজের বিত্তশালীরা সাহায্যের হাত বাড়ালে ও প্রশাসনের সহযোগীতায় উন্নত চিকিৎসা সেবা পেলে সে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারবে।
সরেজমিনে অনুসন্ধানে মূলগাও এলাকার মো. রাসেদ লাবন্য প্রতিবেদককে জানায়, ছোট সময় তার তেমন কোন সমস্যা ছিল না। বয়স বাড়ার সাথে সাথে এ সমস্যা দেখা দেয়। আমাদের সমাজে এধরনের লোকেরা নানা ধরনের বৈষম্যমূলক আচরণ, অবহেলা ও বিব্রতকর পরিস্থিতে পড়ার অভিযোগ রয়েছে। সচেতনাকেই কারন হিসেবে মনে করেন বিশিষ্টজনরা। সমাজের বিত্তবান ও সরকারের সাহায্য সহযোগীতা পেলে সে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারবে।
তানজিম প্রতিবেদককে জানান, ছোট বেলা স্কুলে গেলে সহপাঠিরা বিভিন্ন ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ করত। রাস্তায় বের হলে অনেকের উপহাসের শিকার হতাম। এখনো হই। তাই ক্লাস ফাইভের পরে আর স্কুলে যাওয়া হয়নি। বর্তমানে আমার চলাফেরা করতে খুবই সমস্যা হয়। সকালে ঘুম থেকে উঠার পর হাটা চলা করতে আমার প্রায় এক ঘন্টা সময় লেগে যায়। মাটিতে পড়ে গেলে আর উঠতে পারি না। প্রাকৃতিক কাজ কর্ম করতেও সমস্যা হয়। বর্তমানে স্বাভাবিক জীবন যাপন করা কঠিন হয়ে পড়েছে। আমি স্থানীয় বিত্তশালী ও প্রশাসনের সহযোগীতা কামনা করছি।
এ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে জানতে চাইলে কালীগঞ্জ পৌরসভার মেয়র এস এম রবিন হোসেন প্রতিবেদককে বলেন, আমি তাকে ব্যক্তিগত ভাবে জানি। তার পরিবার যোগযোগ করলে চিকিৎসার জন্য আমার ব্যক্তিগত ও পৌরসভার পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগীতা করব। আমি চাই সে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসুক।

সংবাদ টি শেয়ার করে সহযোগীতা করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ
Design & Developed by REHOST BD