1. dssangbad1@gmail.com : dss :
  2. admin@news.eswadhinsangbad.com : admin :
ইসলামপুর গ্রামে পুলিশের অস্থায়ী ক্যাম্প, ধ্বংসস্তূপ বাড়িতে ফিরছেন মানুষ - দৈনিক স্বাধীন সংবাদ
বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:৫৩ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনামঃ
চট্টগ্রামে জাসাস’র বিভাগীয় কমিটির উদ্যোগে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন  র‌্যাব-১০ এর একাধিক অভিযানে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী ও কেরাণীগঞ্জ এলাকা হতে টপবাজ, গ্যাং স্টার প্যারাডাইস, বয়েস হাই ভোল্টেজ, দে-দৌড়, হ্যাচকা টান ও বুস্টার গ্রুপসহ বিভিন্ন কিশোর গ্যাং গ্রুপের ৫০ জন গ্রেফতার ভাষা শহীদদের প্রতি আমতলী সাংবাদিক ফোরামের শ্রদ্ধা নিবেদন লক্ষীপুরে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে পুলিশ সুপারের শ্রদ্ধা নিবেদন নোয়াখালী চৌমুহনীতে টেকনাফের এক ব্যক্তি অপহরণ মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে হ্যাপি জেনারেল হাসপাতালে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প ব্রাহ্মবাড়িয়া ৩ দিনব্যাপী দ্বিতীয় অদ্বৈত গ্রন্থমেলা-২০২৪ শুরু নবযুগ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ আয়োজনে সাংসদ সদস্যকে সংবর্ধনা ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত নরসিংদীতে মক্তব থেকে ফেরার পথে শিশুকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গ্রেপ্তার

ইসলামপুর গ্রামে পুলিশের অস্থায়ী ক্যাম্প, ধ্বংসস্তূপ বাড়িতে ফিরছেন মানুষ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • প্রকাশিত : বুধবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২৩
  • ৪৩ জন দেখেছে

ভৈরবে বধূনগর এলাকার ইসলামপুর গ্রামে নিরাপত্তার জন্য বসানো হয়েছে অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প। দুটি ইউনিটে প্রায় ২০ জন পুলিশ গ্রামের নিরাপত্তার কাজ করছেন। এদিকে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হওয়া বাড়িতে ফিরতে শুরু করেছেন মানুষজন।

এক ব্যক্তিকে খুনের ঘটনায় প্রতিপক্ষরা গ্রামের অর্ধশত ঘরবাড়ি-বিল্ডিং ভেঙে ধ্বংস করে দিয়েছে। লুট করে নিয়ে গেছে গরু-ছাগল, টাকা-পয়সা, আসবাবপত্র, ঘরের লেপতোশক হাঁড়িপাতিল। এতে কমপক্ষে ৬০-৭০টি পরিবার নিঃস্ব হয়ে গেছে।

ঘটনার পর দুইপক্ষের মামলায় আসামির সংখ্যা ২০০ জন। ফলে গ্রামের কয়েকশ মানুষ একমাস যাবত পুলিশের ভয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

এসব ঘটনার পর দৈনিক যুগান্তরে একাধিকবার খবর প্রকাশ হলে পুলিশের টনক নড়ে। পরে কিশোরগঞ্জের পুলিশ সুপারের নির্দেশে এলাকায় মাইকে ঘোষণা দিয়ে পুলিশ মতবিনিময় সভার আয়োজন করে দুদিন। এতেও সাড়া মেলেনি গ্রামের মানুষের।

একদিকে পুলিশের ভয়, অন্যদিকে দুটি পক্ষের উত্তেজনাকর পরিস্থিতি ও আতঙ্ক। এমন পরিস্থিতিতে গত কয়েক দিন যাবত গ্রামে অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্প বসিয়ে সাধারণ মানুষকে আহবান করছে পুলিশ, আপনারা গ্রামে ফিরে আসুন।

তবে গ্রামের অধিকাংশ ঘরবাড়ি ধ্বংস হয়ে যাওয়ায় সেখানে থাকার মতো কোনো পরিবেশ নেই বলে জানান কয়েকটি পরিবার। এরই মধ্য কয়েকটি পরিবার তাদের ধ্বংসস্তূপ বাড়িতে এসে নতুন করে ঘর নির্মাণের কাজ শুরু করেছে। পুলিশ তাদের সহযোগিতা করছে।

এলাকার ভুক্তভোগী ও ক্ষতিগ্রস্ত মো. নুরুল ইসলাম বলেন, আমার চার লাখ টাকা মূল্যের চারটি গরু, নগদ তিন লাখ টাকা, ২২ ভরি স্বর্ণ লুট করে নিয়ে গেছে নিহতের পক্ষের লোকজন। আমার বাড়িটি ধ্বংস করে দিয়েছে তারা। আমি এখন নিঃস্ব। কী করে বাড়ি ফিরব?

আরেক ক্ষতিগ্রস্ত নবী হোসেন বলেন, ঘটনার পর থেকে এক মাস যাবত পলাতক জীবনযাপন করছি। আমার টাকা-পয়সা, আসবাবপত্র, গরু-ছাগল বাড়ি ভেঙে চুরমার করে দিয়েছে তারা। পুলিশের আহবানে বাড়ি এসেছি কিন্তু রাতযাপন করার কোনো ঘর নেই। ঘর নির্মাণের টাকা নেই।

গ্রামের বাসিন্দা আলফাজ মিয়া জানান, বাড়িতে কিছুই নেই। আমার পরিবার নিয়ে অন্য গ্রামে আশ্রয়ে আছি। এখন বাড়িতে এসেছি। তবে ঘরবাড়ি বাঁধতে সময় লাগবে, টাকা লাগবে। বিপদে আছি, আতঙ্কেও আছি।

আরেক ক্ষতিগ্রস্ত সিদ্দিক মিয়া তার বাড়িতে ফিরে এসেছে তবে কিভাবে ঘর নির্মাণ করে আবার গ্রামে বসবাস করবে এ নিয়ে তিনি চিন্তিত।

গত ১৬ জানুয়ারি ইসলামপুর গ্রামে কালা মিয়া নামের এক ব্যক্তি প্রতিপক্ষের হাতে খুন হয়। পরে নিহত পক্ষের লোকজন গ্রামের অর্ধশত ঘরবাড়ি ভাংচুর, লুটপাট করে। এ খবর যুগান্তরে প্রকাশ হলে পুলিশের টনক নড়ে।

এলাকার ইউপি মেম্বার মো. খোরশেদ মিয়া বলেন, যুগান্তরে খবর প্রকাশের পর পুলিশের টনক নড়ে। ঘটনার পর যদি পুলিশ তৎপর হতো তবে এমনভাবে মানুষের ঘরবাড়ি ক্ষতি হতো না। এখন গ্রামে পুলিশ ক্যাম্প বসানোর কারণে গ্রামটি শান্ত আছে। কিছু কিছু মানুষ বাড়িতে ফিরছেন।

শ্রীনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. হারুনুর রশিদ এ প্রতিনিধিকে বলেন, যুগান্তরে খবর প্রকাশের পর পর পুলিশ তৎপর হয়েছে। একটি খুন গ্রামবাসীকে ধ্বংস করে দিয়েছে। আমরা অনেক চেষ্টা করেও লুটতরাজ, ঘরবাড়ি ধ্বংসের হাত থেকে বাঁচাতে পারিনি। গ্রামের ৬০-৭০টি পরিবার পালিয়ে বেড়াচ্ছে। এখন পুলিশের ডাকে সাড়া দিয়ে কয়েকটি পরিবার বাড়ি ফিরলেও তাদের থাকার মতো কোনো ঘর নেই।

ভৈরব থানার ওসি মোহাম্মদ মাকছুদুল আলম জানান, গ্রামের নিরাপত্তার জন্য পুলিশ ক্যাম্প বসানো হয়েছে। গ্রামের মানুষকে নিজ নিজ বাড়িতে ফিরতে আহ্বান করছে পুলিশ। নির্ভয়ে বাড়িতে আসতে পারেন তারা। এই গ্রামে আর কোনো ঝগড়া-বিবাদ যেন না হয় সেই চেষ্টা করছে পুলিশ।

সংবাদ টি শেয়ার করে সহযোগীতা করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ
Design & Developed by REHOST BD